থ্রিজি সেবায় বাংলাদেশ ভারতের চেয়েও এগিয়ে ।

তৃতীয় প্রজন্মের মোবাইল নেটওয়ার্ক আছে এমন দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের থ্রিজি স্পিডের অবস্থা শোচনীয়। বাংলাদেশে থ্রিজির গড় স্পিড প্রতি সেকেন্ডে ৩ দশমিক ৭৫ এমবিপিএস, যা বিশ্বের ৯৫টি দেশের মধ্যে ৮৪তম স্পিড।

লন্ডনভিত্তিক গবেষণা সংস্থা ওপেনসিগন্যালের সর্বশেষ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। চলতি আগস্টে প্রকাশিত ‘গ্লোবাল স্টেট অব মোবাইল নেটওয়ার্ক’ শীর্ষক প্রতিবেদনটিতে চারটি ক্যাটাগরির ভিত্তিতে থ্রিজি দেশগুলোর র্যাংকিং করা হয়েছে। এগুলো হল- থ্রিজি ও ফোরজি নেটওয়ার্কের প্রাপ্যতা, প্রদত্ত সার্বিক স্পিড, স্পিডের বিপরীতে ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের সঙ্গে সংযুক্ত
হওয়ার সময়সীমা ও সহজলভ্যতা। গবেষণায় দেখা গেছে, ৪১ দশমিক ৩৪ এমবিপিএস গতি নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়া বিশ্বের সবচেয়ে সেরা থ্রিজি দেশে পরিণত হয়েছে।
অন্যদিকে ২ দশমিক ১৭ এমবিপিএস গতি নিয়ে আফগানিস্তান বিশ্বের সবচেয়ে কমগতির থ্রিজি দেশের সারিতে রয়েছে। এদিকে ভারতে গড় থ্রিজির স্পিড ৫ দশমিক ৩০ এমবিপিএস, শ্রীলংকায় ৪ দশমিক ২৮ এমবিপিএস, পাকিস্তানে ৩ দশমিক ৩৩, নেপাল ৩ দশমিক ৭৫ ও ফিলিপিন্সের স্পিড ৩ দশমিক ১৩ এমবিপিএস। এদিকে থ্রিজি সার্ভিসের প্রাপ্যতার বিচারে বাংলাদেশ নিকটবর্তী প্রায় সব দেশ থেকেই এগিয়ে আছে।
থ্রিজি সেবা পাওয়ার প্রাপ্যতার বিচারে ৬৮ দশমিক ৭১ পয়েন্ট পেয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ৮১তম।

অন্যদিকে থ্রিজি প্রাপ্যতার বিচারে ভারতের পয়েন্ট ৫৬ দশমিক ১, পাকিস্তানের ৬৩ দশমিক ৪৭ এবং নেপালের ৫৯ দশমিক ৫০। তবে শ্রীলংকা ৭৮ দশমিক ৪২ পয়েন্ট পেয়ে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। ওপেনসিগন্যালের এই প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বাংলাদেশী ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে ২৫ দশমিক ৪৭ ভাগই ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে তাদের সময় ব্যয় করে থাকে।