হোক বৃষ্টি বা রোদ মেকাপ ঠিক রাখতে করনীয় ।

এই সিজনটাই যেন একটু কেমন কেমন ।এই ঝুম বৃষ্টি, এই কটকটে রোদ। গরমে ঘেমে-নেয়ে একাকার। আবার বৃষ্টিতে ভিজে যাওয়া। আবহাওয়ার মতিগতি এখন এমনই। এই সময়ে সাজের বারোটা বাজতে কতক্ষণ। তাই,
হোক বৃষ্টি বা রোদ মেকাপ ঠিক রাখতে করনীয়ঃ

rode brishty
ঘাম আর বৃষ্টি—দুটো কারণেই এই সময়ের মেকআপে বেছে নিতে হবে পানিরোধক প্রসাধনী।
যাঁদের রোজই কোনো না কোনো কাজে বাইরে বেরোতে হয়, তাঁরা কীভাবে সাজবেনঃ
চুলটা আটকে নিলেই আরাম হবে। সামনে চুল ছেড়ে না রেখে টানটান করে ব্যাকব্রাশ অথবা হালকা ফুলিয়ে পনিটেল করে নিতে পারেন। আর এই আবহাওয়ায় ভারী মেকআপকে বলতে হবে ‘না’।
সাজের সঙ্গে পোশাকটাও এ সময়ের উপযোগী হওয়া চাইমুখে শুধু কমপ্যাক্ট পাউডার, চোখে পানিরোধক কাজল, মাশকারা আর ঠোঁটে লিপস্টিক। তবে মুখ যেন একেবারে ম্লান না দেখায় সে জন্য ঠোঁটের সাজ গাঢ় করতে পারেন। এখন তো গাঢ় ও কালচে রঙের লিপস্টিকেরই চল।
গ্লসি বা ফ্রস্টেড লিপস্টিক এ সময়ের জন্য নয়। এখন ব্যবহার করতে হবে ম্যাট লিপস্টিক। দিনের বেলায় হালকা আর রাতে লাল, কফি, মেরুন, বাদামি, বেগুনি, পিচ রঙের লিপস্টিকে জমকালো দেখাবে। তবে ক্রিমি লিপস্টিক যদি দিতেই হয়, সে ক্ষেত্রে আগে ত্বকের টোনের সঙ্গে মিলিয়ে কোনো লিপ লাইনার দিয়ে পুরো ঠোঁট ভরিয়ে নিন। এরপর নিজের পছন্দের লিপস্টিক তুলিতে অল্প করে নিয়ে লাগিয়ে ফেলুন। তাহলে ঠোঁট খুব চকচকেও দেখাবে না আর লিপস্টিকের রংটাও ফুটে উঠবে।
সেক্সি
এ সময় গরম বেশি বলে ফাউন্ডেশন এড়িয়ে যেতে হবে। আর মেকআপের সব উপকরণই হবে শুকনো বা ম্যাট। মেকআপ করার আগে মুখে একখণ্ড বরফকুচি ঘষে নিলে লোপকূপগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে মুখ ঘামবে কম। তারপর মুখ শুকিয়ে নিয়ে কমপ্যাক্ট পাউডার ও তার সঙ্গে ভালো মানের কোনো বেবি পাউডার সামান্য একটু মিশিয়ে মুখে ভালোমতো পাফ করে নিতে হবে। রাতের কোনো দাওয়াতে ব্লাশন ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে, তা যেন কোনোমতেই ক্রিমি না হয়। হালকা রঙের ম্যাট ব্লাশন গালে অল্প করে বুলিয়ে নিতে পারেন। চোখে আইশ্যাডো ব্যবহার না করে আই পেনসিল লাগিয়ে সেটাই আঙুল বা ব্রাশ দিয়ে মিশিয়ে নিতে পারেন। সবুজ, নীল, বেগুনি, বাদামি অনেক রঙের আই পেনসিল পাওয়া যায় এখন। হাইলাইট করার জন্য ত্বকের চেয়ে এক ধাপ হালকা টোনের কমপ্যাক্ট পাউডারও কিন্তু কাজে লাগানো যায়।
সাজের সঙ্গে পোশাকটাও এ সময়ের উপযোগী হওয়া চাই । ভ্রু জোড়া খুব বেশি পাতলা হলে বাদামির সঙ্গে একদম অল্প পরিমাণ কালো রঙের আইশ্যাডো মিশিয়ে ব্রাশ দিয়ে এঁকে নিতে পারেন। কিন্তু ভ্রু ঘন হলে এই কাজটি করার কোনো দরকার নেই। গরমে মেকআপ যত কম করা যায় ততই ভালো। তাই সিমার, প্যানকেক, লিপগ্লস এই জিনিসগুলো নাহয় এই কয়টা দিন ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারেই পড়ে থাকুক।

বৃষ্টি–বাদলার দিনেও ত্বক ঠিক রাখতে সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করা ভালোএখন বরং ত্বকের ধরনের সঙ্গে মিলিয়ে মুখে বিবি ক্রিম, সিসি ক্রিম বা সানস্ক্রিন পাউডার ব্যবহার করুন। বাইরে যাওয়ার অন্তত ১৫-২০ মিনিট আগে এগুলো মুখে লাগাতে হয়।
সাজ শেষে আপনি যখন বাইরে বেরোনোর জন্য প্রস্তুত তখন মুখে হালকা করে স্প্রে করে নিন মেকআপ ফিক্সিং স্প্রে। এটি মেকআপ দীর্ঘসময় ধরে ঠিক রাখতে সাহায্য করে। তবে যত কিছুই করেন না কেন; যদি হুট করে বৃষ্টির কবলে পড়েই যান অথবা খুব ঘামতে থাকেন তাহলে টিস্যু বা কাপড় দিয়ে মুখ মুছতে যাবেন না যেন। এতে মেকআপ উঠে আসবে। বরং হাতব্যাগে সব সময় কমপ্যাক্ট পাউডার আর পাফ রাখুন। যেন প্রয়োজন হলেই পাফ দিয়ে মেকআপটা ঠিকঠাক করে নিতে পারেন।
Previous
Next Post »