গো হত্যা কি আসলেই পাপ?

গরুর রক্ত দেইখা তোমরা যারা আমার ধর্মকে ধুয়ে দিচ্ছো। তোমাদের কোন ধর্ম গ্রন্থে দেখাতে পারবে যে গরুর মাংস খাওয়া যাবেনা?

১. মুরগীর তো রক্ত নাই! মুরগীর গলা কাটলে লাল রঙের যেই জিনিস বাইর হয় ওইটা তো রুহ আফজা !
২. বান্ধবীর গলায় ঝুইলা বিফ স্টেক খাইলে অসুবিধা হয় না! বিফ তো গরু না, ইটস জাস্ট এ বিফ, গাছে ধরে। ভেষজ মাংস।
৩. এখন থেইকা তো মাছ ও খাওয়া যাবে না! মৎস্য হত্যা??? বাপ্রে! সে তো মহাপাপ!! শুধু মাত্র ক্ষুধা নিবারণের জন্য একটা অসহায় তেলাপিয়া মাছের তলপেটে কাঁটা চামুচ চালানো আর যাই হোক মানব ধর্ম হতে পারে না...
৪. বাকি থাকলো ভেজিটেবল!! কিন্তু সর্বনাশ তো সব কইরা দিয়া গেছে মোচ ওয়ালা জগদীশ সাহেব! গাছের প্রাণ আছে এই প্রাণঘাতি থিওরি দিয়া তো উনি খাদ্য তালিকার সব হিসাব নিকাস কেচকায় দিছে !!
তাইলে উপায় ??
আপনাদের ভাষায় মানব ধর্ম দেখাইতে গেলে তো বাতাস সেবন করা ছাড়া আর কোন উপায় নাই! খিদা লাগলে রিক্সার পাম্পার মুখে লাগায়া হাওয়া খাওয়া লাগবো! প্রেমিকারে নিয়া রেস্টুরেন্টে খাইতে গেলে দুইটা মিডিয়াম সাইজের গ্যাস বেলুন অর্ডার দেওয়া লাগবে।
কি মর্মান্তিক বিনোদন ! আহ !!
শুনেন ভাই! ধর্ম যার যার, উৎসব কিন্তু সবার!! আমরা এটলিস্ট ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হই !! আজকে আপনি আমার ধর্ম ধুয়ে দিলেও , কাল আপনার ধর্মীয় উৎসবে আপনাদের ধর্মের প্রসাদ খেতে হাসি মুখে দাঁত কেলাতে কেলাতে যে আমি হাজির হবো না, ব্যাপারটা কিন্তু তা না...
ঐ যে বললাম, ' ধর্ম যার যার, উৎসব সবার '
এটলিস্ট পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ থেকে হলেও অন্নের ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত দেওয়া বাদ দেই। ধর্ম নিয়ে খোঁচাখুচি করে কি লাভ ভাই??
দিন শেষে আমরা আমরাই তো সব।।


Previous Post
Next Post