চশমার বিকল্প ফ্যাশনেবল লেন্স ।

লেন্সের দিনকাল

Lens Fectors:

♦ ব্র্যান্ডের লেন্সে এক বছরের মেয়াদ থাকে। কিন্তু ডাক্তাররা মনে করেন, লেন্স ছয় মাসের বেশি পরা উচিত না। পরলে চোখে সংক্রমণ হতে পারে।

♦ লেন্স সাধারণত দুই রকমের। এক ধরনের লেন্স আছে, যা চোখের ন্যাচারাল কালার পরিবর্তন করবে। আরেকটি চোখের ন্যাচারাল কালার আরো উজ্জ্বল করবে। ত্বক, চুলের রং, চোখের রং অনুযায়ী লেন্সের কালার নির্ধারণ করা উচিত।

♦ যারা নতুন লেন্স পরছেন, তাঁরা প্রথমে নিজের চোখের রঙের সঙ্গে যায় এমন লেন্স পরুন।

ত্বকের জন্য
ফরসা : যাঁদের গায়ের রং ফরসা তাঁদের সাধারণত সব ধরনের লেন্সেই ভালো লাগে।
চোখের মণি কালো : নীল, বেগুনি, ফিরোজা।
চোখের মণি নীল : প্যাসিফিক ব্লু, ঈষৎ লাল, হালকা সবুজ, ফিরোজা।
চোখের মণি বাদামি : গাঢ় সবুজ, স্বচ্ছ নীল, ঈষৎ লাল।
শ্যামলা : যাঁদের গায়ের রং শ্যামলা তাঁরা অলিভ থেকে শুরু করে হালকা বাদামি কালারের লেন্স পরতে পারেন। এ ছাড়া কমপ্লিমেন্টারি কালার হিসেবে সব ধরনের কালারই পরতে পারবেন।
চোখের মণি কালো : বাদামি, গাঢ় ছাই, ফিরোজা।
চোখের মণি নীল :  নীল, ফিরোজা, স্বচ্ছ নীল, হালকা লাল।
চোখের মণি বাদামি : কমলা লাল, স্বচ্ছ নীল, ফিরোজা।
চোখের মণি সবুজ : নীল, ফিরোজা, স্বচ্ছ নীল, হালকা লাল।
কালো : যাঁদের গায়ের রং কালো তাঁরা উজ্জ্বল রঙের লেন্স পরা থেকে বিরত থাকুন। চোখের কালারের সঙ্গে মিলিয়ে লেন্স কিনুন।
চোখের মণি কালো : বাদামি, হালকা লাল, ছাই অথবা নীল।
চোখের মণি নীল : হানি, লালচে সবুজ, নীল, বাদামি।
চোখের মণি বাদামি : লাল, হালকা সবুজ, হালকা নীল, গাঢ় নীল।

অসুবিধা
♦    খুব ঘন ঘন লেন্স পরলে চোখ শুষ্ক হয়ে যেতে পারে।
♦    যাঁদের চোখে অ্যালার্জি আছে, লেন্স পরলে তাঁদের চোখ লাল হয়ে পানি পড়তে পারে।
♦    যেহেতু লেন্স প্লাস্টিক অথবা সিলিকন দিয়ে তৈরি, তাই লেন্স পরলে অনেকেরই চোখ জ্বলে।
♦    লেন্স পরিষ্কার না রাখলে চোখে সংক্রমন হতে পারে।
♦    দীর্ঘদিন ধরে লেন্স পরলে কর্নিয়ায় সমস্যা হয়।

দরদাম
বাংলাদেশে বেশি বিক্রি হয় ফ্রেশ লুক ও ফ্যাশনের লেন্স। ফ্রেশ লুক লেন্স সলিউশনসহ দাম পড়বে ১৩০০ থেকে ১৫০০ টাকা আর ফ্যাশনের দাম সলিউশনসহ ১১০০ টাকা। ফ্রেশ লুক যেকোনো চশমার দোকান, আলমাস, প্রিয়তে পাবেন। ফ্যাশনের লেন্স পাবেন শুধু তাদের আউটলেটে।