নন স্টপ বাংলাদেশ ।

ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড আয়োজনের স্লোগানেই বলা হয়েছে ‘নন স্টপ বাংলাদেশ’। অবিরত বাংলাদেশ, যে বাংলাদেশ থেমে যাওয়ার নয়। তথ্যপ্রযুক্তির হাত ধরে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ায় এই প্রদর্শনী দেখতেই এসেছেন নাজমুল হোসেন নামের এক শিক্ষার্থী। তিনি বললেন, ‘মেলায় এসে বুঝতে পারলাম বাংলাদেশ সত্যি এগিয়ে যাচ্ছে। অনেক শিক্ষার্থী তাদের বানানো প্রযুক্তিপণ্য প্রদর্শন করছে।’ আরেক শিক্ষার্থী নাবিলা নিভু বলেন, ‘এ আয়োজনে এসে নতুন প্রযুক্তি সম্পর্কে জানতে পারছি।’ ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) গতকাল বুধবার থেকে শুরু হয়েছে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের এই চতুর্থ আসর।
ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে ড্রোন উড়ান একদল শিক্ষার্থী
সকালে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর দুপুরে মেলা খুলে দেওয়া হয় সাধারণ দর্শকদের জন্য। মেলা প্রাঙ্গণে দেখা যায় সারি করে দাঁড়ানো ছয়টি নতুন বাস। এই বাসগুলো আসলে নারীদের জন্য ভ্রাম্যমাণ কম্পিউটার প্রশিক্ষণকেন্দ্র। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বাসগুলোর উদ্বোধন করেন। এই বাসগুলোতেই শেখানো হবে কম্পিউটার। সারা দেশে ঘুরে বেড়াবে বিশেষ বাসগুলো। ‘টেকসই নারী উন্নয়নে আইসিটি’ স্লোগানের এই বাসগুলো ছাড়া হলো সরকারের আইসিটি বিভাগ, রবি ও হুয়াওয়ের উদ্যোগে।
মেলার শুরুতেই রয়েছে গুগল ডেভেলপার গ্রুপ (জিডিজি) বাংলার ব্যবস্থাপনায় ‘ইনোভেশন জোন’। এখানে তরুণদের উদ্ভাবনী প্রকল্প দেখানো হচ্ছে। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে শিক্ষার্থীদের নিয়ে তথ্যপ্রযুক্তি পেশা-বিষয়ক সম্মেলনের পাশাপাশি প্রথমবারের মতো উন্নয়ন-সহযোগীদের নিয়ে থাকছে ডেভেলপার সম্মেলন। এ ছাড়া আছে সফটওয়্যার শোকেসিং জোন, ই-গভর্ন্যান্স এক্সপোজিশন জোন, মোবাইল ইনোভেশন জোন, ই-কমার্স এক্সপো জোন, স্টার্টআপ জোন ও গেমিং জোন।
এই বাসগুলোতে চলবে নারীদের প্রশিক্ষণ l ছবি: খালেদ সরকার
তিন দিনের ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে মাইক্রোসফট, ফেসবুক, একসেন্সার, বিশ্বব্যাংক, জেডটিই, হুয়াওয়েসহ তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের ৪৩ জন প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছেন। বিদেশিসহ দুই শতাধিক বক্তা ১৮টি অধিবেশনে অংশ নিচ্ছেন। এই মেলা চলবে আগামীকাল শুক্রবার পর্যন্ত।

Previous Post
Next Post